৮.১০ জুয়া



জুয়াখেলা নিষিদ্ধ হইয়াছে ইহা অসাধুভাবে অর্থলাভের উপায় বলিয়া, যাহার প্রকৃত মূল্য দিতে হয় সাধারণ মানুষকে তাহারা জানেনা যে জুয়াতে জিতিবার সম্ভাবনা কি পরিমাণ তাহাদের বিরুদ্ধে কাজ করে।

উপরের ৮.৯ অনুচ্ছেদে উদ্বৃত (২:২১৯), (৫:৯০,৯১) আয়াতে আমরা দেখিতে পাই (জুয়া অথবা ভাগ্যের খেলাসমূহ, নেশা উদ্রেককারী পানীয়সমূহের সহিত একত্রে সন্নিবেশিত হইয়াছে। ইহার একটি কারণ অবশ্য ইহাই যে উভয়ই আসক্তিজনক। সুরাসর মনের স্বচ্ছতা বিনষ্ট করে; জুয়া ভবিষ্যত জয়ের সম্ভাবনার (অথবা লোকসান উদ্ধারের) চিন্তায় মনকে আচ্ছন্ন করিয়া রাখে — সর্বদাই আশা থাকে যে পরবর্তী সময় সুভাগ্য ফলিবে। অধিকাংশ ব্যক্তি ভাবিয়া থাকে যে অল্প একটু ‘জুয়া খেলা’ আমোদ আহ্লাদ হিসাবে ভাল। তাহারা উপলব্ধি করে না যে, যাহারা ইহাতে আসক্ত হইয়া পড়ে, তাহাদের জন্য ইহা অবর্ণনীয় ক্ষতি করিয়া থাকে। দুর্ভাগ্যবশতঃ, সরকারই জুয়াখেলার পক্ষে উদ্যোগী হয় কারণ ইহাতে বিরাট পরিমাণে শুল্ক আদায় হয়। কিন্তু যাহারা বাস্তবিকই জয়লাভ করে তাহারা জুয়া খেলার উদ্যোক্তা, যাহারা বিরাট ব্যবসা পরিচালনা করে।

যদি উদাহরণ হিসাবে ন্যাশনাল লটারী লওয়া যায়, এবং ইহার তাৎপর্য বিশ্লেষণ করা যায়, তাহা হইলে আমরা দেখিতে পাইব কাহারা জয়ী হইতেছে, এবং সমাজকে ইহা কিরূপে ক্ষতি করিতেছে। সত্যকার বিজয়ী সেই সমস্ত ব্যক্তি যাহারা ন্যাশনাল লটারী চালাইতেছে, তাহাদের অংশীদারগণ এবং সরকার। সরকার ইহার ন্যায্যতা প্রতিপাদন করে এই বলিয়া যে এই টাকার একটি ভাল অংশ ‘ভাল কাজে’ ব্যয় হইতেছে। কিন্তু ‘ভাল কাজ’ বলিতে অধিকাংশই এইরূপ প্রকল্প যাহা ধনীরা ব্যবহার ও উপভোগ করে, যেমন চিত্রকলা, থিয়েটার, ক্রীড়া ও জাতীয় উত্তরাধিকার ইত্যাদি। অপর পক্ষে, আমরা যদি বিশ্লেষণ করিয়া দেখি কাহারা ইহাতে অংশ নিতেছে (অর্থাৎ যাহারা এই লটারীর টিকিট ক্রয় করে) আমরা দেখিতে পাই যে ইহার মধ্যে বহু উচ্চশতাংশ হারের ব্যক্তি আছে যাহাদের পক্ষে নিজেদের সংসার চালনা আদপেই কষ্টকর। তবুও তাহারা সংসার খরচের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ লটারীতে খরচ করে, তাহারা আশা করে যে পরবর্তী প্রচেষ্টায় সুভাগ্য ফলিবে এবং তাহারা যে দরিদ্র অবস্থার মধ্যে আছে তাহা হইতে মুক্তি পাইবে।

তাহাদের জীবনের বাস্তব অবস্থা হইতে নিষ্কৃতি পাইবার চাপ বিরাট, বিশেষতঃ তাহাদের — দৃষ্টিতে অকল্পিত সম্পদের ছবি প্রদর্শন করা হয় — যাহা কেবলমাত্র একটি লটারী টিকিটের অপেক্ষা রাখে ! এই সমস্ত প্রতারিত দুর্ভাগারা উপলব্ধি করে না যে ন্যাশনাল লটারীতে এক মিলয়ন (দশ লক্ষ) পাউণ্ড পাইবার সম্ভাবনা অপেক্ষা রাস্তাঘাটে মারা যাইবার সম্ভাবনা প্রকৃতই আরো অধিক। ফলতঃ, এইরূপে, সরকার দরিদ্রদের নিকট হইতে অর্থ আদায় করিতেছে এবং এইপ্রকার ‘স্চ্ছোপ্রদত্ত কর’ রূপে তাহার উপকার ধনীদের উপর বর্ষণ করিতেছে।

দারিদ্রসীমা অথবা তাহার নিকটে যাহারা জীবিকা নির্বাহ করিতেছে তাহারা তাহাদের সাংসারিক আয়ের কি পরিমাণ অর্থ লটারীতে ব্যয় করিতেছে –এবং ইহা কিরূপে তাহাদের পরিবারবর্গকে মানসিক ও বস্তুগত ভাবে প্রভাবিত করিতেছে সে বিষয়ে একটি যথাযথ সমীক্ষা নির্বাহ করিলে তবেই সমাজের যে ক্ষতি হইতেছে তাহা পূর্ণ মাত্রায় নির্ণয় করা সম্ভব হইবে। পরিসংখ্যানে সকল বয়সের ব্যক্তিকে স্থান দিতে হইবে, যেহেতু কিছু কিছু সংবাদপত্রের বিবরণ হইতে ধারণা হয় যে ১০ বৎসরের ন্যায় অল্পবয়স্ক শিশুরাও স্ক্রাচ্ কার্ড খেলিতেছে।

টীকা: কিছু কিছু অর্থঘটিত কর্ম, যথা ফিউচার্স (futures) বা দূরকল্পী লেনদেন, অপশানস্ (options) এবং ডেরিভেটিভস্ (derivatives), এই সমস্ত কিছুরই জুয়া খেলার সহিত উচ্চ পর্যায়ের সাদৃশ্য বর্তমান। এই সমস্তও বিরাট প্রকার ক্ষতি সাধন করিতে পারে, বহুর জন্য গুরুতর ওলোট পালোট সৃষ্টি করিয়া, যদিও অল্পসংখ্যক ব্যক্তির জন্য এগুলি বহন করে বিরাট ফললাভ।

৮.১১ সুদ (রিবা/তেজারতি ১২.১ বিভাগ দ্রষ্টব্য)

৮.১২ মধ্যস্থতা (১০.৩ বিভাগে নির্বাচন নং ৮ দ্রষ্টব্য)





Home Next >>