১৯. মানুষের বিবর্তন



ডাঃ মরিস বুকাইলের পুস্তক (The Origin of Man) (মানুষের উৎপত্তি) নামক গ্রন্থের উপর ভিত্তি করিয়া এই বিশ্লেষণ লেখা, ও ইহার আলোচিত বিষয়বস্তু ঐ গ্রন্থের ১৬০ হইতে ২১৯ পৃষ্ঠার একটি সংক্ষিপ্তসার। অনেক পৃষ্টা হইতে উদ্ধৃতি দেওয়া হইয়াছে যদিও কোরানের আয়াতগুলি বাদে। ডঃ বুকাইল তাহার দৃষ্টিভঙ্গির সমর্থনে কোরানের বহু আয়াত উল্লেখ করিয়া বলিয়াছেন যে এইগুলির তাৎপর্য বর্তমান জ্ঞানের ভিত্তিতে ব্যাখ্যা করা যায়। অবশ্য একথা বুঝিবার প্রয়োজন আছে যে কোরানে বর্ণিত তথ্য সমূহ কেবলমাত্র সুপ্রতিষ্ঠিত বৈজ্ঞানিক তথ্য মূলক ঘটনা সমূহের সঙ্গেই তুলনা করিতে হইবে। যে সমস্ত বৈজ্ঞানিক তত্ত্ব পরিবর্তনের অপেক্ষা রাখে তাহা গণনার বাহিরে। তাঁহার উল্লিখিত আয়াত সমূহে তাঁহার নিজস্ব অনুবাদের সহিত বর্তমানে প্রচলিত অনুবাদের বৈষম্য সম্বন্ধে ডঃ বুকাইল সতর্ক হইতে বলিয়াছেন। মানুষ এবং বিজ্ঞান বিষয়ক বিবৃতির ক্ষেত্রে ইহা বিশেষভাবে প্রযোজ্য, ইহার কারণ আদি ভাষ্যকারদের ব্যাখ্যার ভিত্তিতে আয়াত সমূহের অনুবাদ করিবার চলিত প্রথা, যদিও তাঁহাদের দৃষ্টিভঙ্গি কখনই বর্তমান আবিষ্কার সমূহের সঙ্গে সামঞ্জস্য পূর্ণ হইতে পারে না

“উদাহরণ স্বরূপ, কোরানে জীবের উৎপত্তি সাধারণ ভাবে বর্ণিত হইয়াছে এবং মানুষের দেহগত আকারের রূপান্তর বিষয় দীর্ঘ স্থান পাইয়াছে। আল্লাহ্ মানুষকে নিজের ইচ্ছামত আকার দিয়াছেন ইহা বহুবার জোরালো ভাবেই উল্লেখিত হইয়াছে। তেমনি মানুষের প্রজনন বিষয়ক অনেক বিবৃতি পাওয়া যায় যেগুলি যথাযথ স্পষ্ট ভাষায় ব্যক্ত হওয়ার দরুণ আমাদের বর্ত্তমান ধর্মনিরপেক্ষ জ্ঞানের সহিত ঐ সমস্ত বিষয় তুলনা সাপেক্ষ”। বস্তুতঃ, কিছু কিছু আয়াত ভ্রূণবৃদ্ধি বিষয় ছাড়াও যুগ যুগ ব্যাপী মানুষের দেহগত বিবর্তন সম্বন্ধে উল্লেখ করে যাহা জীবাশ্ম-বিজ্ঞান কতৃক রীতিমত প্রমাণিত হইয়াছে।

“যাহা হউক, স্পষ্টতঃ, বানর জাতীয় জীব হইতে মানুষের উৎপত্তি (যে তত্ত্ব পুরাপুরিই যুক্তি বিরুদ্ধ), এবং কালক্রমে মনুষ্য আকৃতির রূপান্তর (যাহা সর্বতোভাবে প্রমাণিত হইয়াছে) এই দুই ধারণার মধ্যে একটি বিরাট ব্যবধান বর্তমান। যখন তুচ্ছ যুক্তিতর্কের ভিত্তিতে এই দুই ধারণাকে বিবর্তনবাদের (EVOLUTION) পতাকাতলে একীভূত করা হয় তখনই তাহাদের জট পাকানো অবস্থা চূড়ান্তে পৌছায়। এই দুর্ভাগ্য জনক বিশৃঙ্খলতা অনেককে ভ্রান্ত ধারণা দেয় যে, মানুষের ক্ষেত্রে যেহেতু শব্দটি প্রয়োগ করা হইয়াছে অতএব, ইহার অর্থ এই যে মানুষের উৎপত্তির সূত্র বানর জাতীয় জীবের মধ্যে পাওয়া যাইবে”। একথা পরিষ্কার ভাবে বুঝিতে হইবে যে ডঃ বুকাইলের উদ্ধৃত আয়াতগুলির মধ্যে মানুষের বস্ত্রতান্ত্রিক উৎপত্তির ধারণার বিন্দুমাত্র আভাস নাই।

বস্তুতঃই, এই বিষয়ের উপর কোরানের বিবৃতির সহিত দীর্ঘকালের ভিত্তিতে মানব আকৃতির দেহগঠনগত রূপান্তরের প্রশ্নের নিকট সম্বন্ধ রহিয়াছে। শেষোক্ত এই প্রক্রিয়া বাস্তবিকই পিতা ও মাতার জনন-কোষ হইতে প্রাপ্ত ক্রমোসম সমূহের মিলন হইতে উদ্ভূত জনি-সংকেত (genetic code) সূত্র দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। এইরূপ জনি-উত্তরাধিকারীত্ব পিতা মাতার সহিত তুলনামূলক ভাবে প্রথমে অবিকাশিত ভ্রূণে (embryo-গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় মাসের পূর্বে) ও পরে বিকাশিত ভ্রূণে (foetus-গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় মাসের পর) দেহগঠনগত পরিবর্তনের সম্ভাব্য উপস্থিতি নির্দ্ধারণ করে। শিশুর জন্মলাভের পরে ও শৈশবে তাহার বৃদ্ধির সময় এই সমস্ত পরিবর্ত্তন নিশ্চিত রূপ নেয়। [...] সুতরাং বংশ পরম্পরায়ব্যাপী সম্মিলিত পরিবর্তন সমূহই দেহগঠন-গত রূপান্তরের চূড়ান্ত রূপ নির্ণয় করে যাহা প্রত্নজীববিদ গণ অতীত যুগের বিভিন্ন মানবগোষ্ঠীর মধ্যে লক্ষ্য করিয়াছেন”।

“বর্তমান কালের বানর জাতীয় জীবের বিবর্তিত আকৃতি হইতে মানুষের উৎপত্তির ইঙ্গিত দিবার মত কোন নিশ্চিত বিজ্ঞান ভিত্তিক প্রমাণ নাই। অপর পক্ষে সমস্তকিছু এই অপ্রচলিত তত্ত্বের বিরোধিতা করে। বিজ্ঞান যাহা প্রতিষ্ঠা করিয়াছে তাহা হইলে মনুষ্য প্রজাতি কোন এক সময় আবির্ভূত হইয়া ধীরে ধীরে বর্তমান মানুষে রূপান্তরিত হইয়াছে। বৈজ্ঞানিক দৃষ্টি ভঙ্গিতে এই সমস্যার গুরুত্বপূর্ণ দিক হইল যে মানুষ কোন্ অস্তিত্ব হইতে বিবর্তিত হইয়াছে তাহা আমরা জানিনা: ইহা কি কোন স্বতউদ্ভূত জাতি, না অন্য কোন কিছু হইতে উদ্ভূত হইয়াছিল যাহা অন্য কোন জাতীয় জীবের সহিত সংযুক্ত হইতে পারে। উত্তর যাহাই হউক, সুপ্রজনন বিদ্যার সাম্প্রতিক গবেষণার ইঙ্গিত অনুযায়ী মানুষের বিশেষ দেহকাঠামো ও বৃত্তির আবির্ভাব নিয়ন্ত্রণ করে এমন কোন নূতন তথ্য সংযোজন ব্যতীত অন্য কোন উপায়ে এই প্রক্রিয়া সংঘটিত হইতে পারিত না। উদ্ভাবী-বিবর্তন-তত্ত্বের ইঙ্গিত অনুযায়ী এই সমস্ত ঘটনা নিখুঁতভাবে সম্প্রসারী জনি-সঙ্কেত ছকের সহিত মিলিয়া যায়”।

References: (প্রসঙ্গ সূত্র)

১. What is The Origin of Man? by Dr. Maurice Bucaille.
Publisher Seghers, 6 Place Saint-Sulpice 75006 Paris.
p. 162, 163.
২. Ibid,. p. 170.
৩. Ibid,. p. 180.
৪. Ibid,. p. 212.





Home Next >>